কবি

কবি মুমতাহিনা মুনের একক কবিতা পাঠের আসর

মুহাম্মদ নাজমুল হাসান --- কবি

কবি মুমতাহিনা মুনের একক কবিতা পাঠের আসর

কবি মুমতাহিনা মুনের লেখালেখির শুরু ছাত্র জীবন থেকেই। কবিতা দিয়েই সেই লেখালেখির সমৃদ্ধ যাত্রা শুরু। ২০১২ সাল থেকেই আরও গুরুত্ব পেতে শুরু করে। যা পরবর্তীতে গল্প, উপন্যাস ও ছড়া লেখায় আগ্রহী করে তোলে। তিনি গল্প, কবিতা, ছড়া উপন্যাস এবং শিশু সাহিত্য রচনা করেন। তার এ পর্যন্ত প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা ৪টি। এগুলো হলো- শেষ পর্যন্ত  তুমিও (ছোটগল্প সংকলন), ভুত পেলো ভয় (শিশুতোষ ছড়া), আমার বোতল ভুত শিশু সাহিত্য তার সঙ্গে তুমি আমি (উপন্যাস)। এর মধ্যে অগ্নিবীণা সাহিত্য সাংস্কৃতিক পরিষদের পক্ষ থেকে আলোচিত বই হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে গল্পগ্রন্থ "শেষ পর্যন্ত তুমিও"। তার কবিতা সমকালীন, নান্দনিক, তার কাব্য ভাষা ঋজু অথচ নরম কোমল। এমন প্রতিবাদী কণ্ঠের যাদু খুব কমই দেখা যায়। তার আবৃত্তিও চমৎকার ও মনোমুগ্ধকর। কাব্যে তীব্র ভাষায় প্রতিবাদী হুংকার আছে। আছে মায়া ভরা এক প্রকৃতিক আহবান। সমাজের অসঙ্গতি আর অনাচার কলমের খোঁচায় দেখিয়ে দেন অন্তমিলের কারুকার্যে। তার কবিতাগুলো বিষয় বৈচিত্রে ভরা। তাই পাঠক, শ্রোতা কখনই ক্লান্তি বোধ করবেন না বলেই আমার বিশ্বাস। তিনি বলেন-

"আমার কিছু পোষা বুলেট আছে,

পিস্তলের খোঁজে সারা রাত হেঁটে বেড়ায়।"

শুনলেই পিলে চমকে যায়। যারা অন্যায় অত্যাচার করে সমাজকে নরকুণ্ডে পরিণত করেছে তাদের কাছে এই হুশিয়ারী উচ্চারণ মজলুমকে সাহসী করে তোলে। পৈশাচিক ও অমানবিক আচরণ করতে যাদের বুক একটুও কাঁপে না তাদের তিনি কাব্য বানে পিষে দিতে পারেন।

এই কবিতা পাঠের আসরে তিনি শুরু করেছেন ফেরীওয়ালা দিয়ে। বলেছেন-

...

“ফেরীওয়ালা ভাবে মনে জমবে এবার

আয়না বেঁচার তার ছোট কারবার

ঘুরে ঘুরে সে যুবক বোঝে অবশেষে

আয়না যায়না বেঁচা অন্ধের দেশে”

তিনি একে একে আবৃত্তি করেছেন জীবন্ত চিতা, পরিচয়, নির্ভয়, নষ্টা পল্লীর মেয়েসহ আরও অনেক কবিতা। সমসাময়িক বিষয়ের উপর তার প্রতিবাদী কণ্ঠে আপনারা শুনতে থাকুন কবি মুমতাহিনা মুনের কাব্য রস।
 
 


ফটোগ্যালারী